সৈয়দপুরে ৭১’র সহযোগী মুক্তিযোদ্ধা পরিষদের সদস্য সংগ্রহের নামে প্রতারণা ॥ এক নারী আটক

তোফাজ্জল হোসেন লুতু, সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:
নীলফামারীর সৈয়দপুরে নানা রকম প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে ৭১’র সহযোগি মুক্তিযোদ্ধা পরিষদের সদস্য সংগ্রহের নামে নগদ অর্থ আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে।
এ অভিযোগে মোছা. খোদেজা বেগম (৪৭) নামের প্রতারক চক্রের এক নারী সদস্যকে আটক করা হয়েছে। শহরের হাতিখানা বানিয়াপাড়া এলাকা থেকে গতকাল বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) সন্ধ্যায় তাঁকে আটক করে থানা পুলিশের হাতে তুলে দেন এলাকাবাসী।
থানায় দায়েকৃত মামলা সূত্রে জানা গেছে, শহরের মুন্সিপাড়া এলাকার মো. বিল্লাহ্ হোসেনের স্ত্রী  খোদেজা বেগম। তিনি গত ২৭ নভেম্বর বিকেলে শহরের হাতিখানা বানিয়াপাড়া এলাকায় যান। এ সময় তিনি এলাকার জনৈক মো. মনসুর আলীর বাড়িতে গিয়ে জানায় ৭১’র সহযোগি মুক্তিযোদ্ধা পরিষদের সদস্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। আর পরিষদের সদস্য হতে পারলে প্রত্যেকে মুক্তিযোদ্ধাদের মতো প্রতি মাসে ১৫- ২০ হাজার টাকা সরকারি ভাতা, সরকারের দেওয়া ৯ লাখ টাকার বাড়ি, ছেলেমেয়েদের সরকারি চাকুরিতে কোটা, জাতীয় দিবসে সম্মাননাসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা পাবেন। এ পরিষদের সদস্য হতে বয়স ৬০ বছর। আর সদস্য হতে এক শত টাকায় বিনিময়ে পরিষদের সদস্য ফরম সংগ্রহপূর্বক জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি ও দুই কপি ছবি দিতে হবে। এছাড়াও সদস্য হওয়ার জন্য প্রাথমিক অবস্থায় এক হাজার টাকা  প্রদান করতে হবে। পরবর্তীতে ১৫/২০ দিনের মধ্যে  পরিষদের সদস্য পরিচয়পত্র তৈরি শেষে সরবরাহের সময় আরো এক হাজার টাকা পরিশোধ করতে হবে। নারী প্রতারক চক্রের সদস্য খোদেজা বেগমের এমন কথা বিশ্বাস করে গৃহবধূ  জোবেদা বেগম ওরফে জোবে তাঁর মা অমিছা ও স্বামী মনসুর আলীকে সদস্য করতে সম্মত হয়। এ সময় দুইটি ফরমে গৃহবধূর মা ও স্বামীর টিপসহি গ্রহন করা হয়। কিন্তু এ সময় গৃহবধূ জোবেদার কাছে নগদ টাকা না থাকায় শুধুমাত্র সদস্য ফরমের জন্য ২০০ টাকা তুলে দেয় প্রতারক চক্রের সদস্য খোদেজা বেগমের হাতে। পরদিন প্রতারক চক্রের সদস্য খোদেজা বেগম  জোবেদা বেগমের বাড়িতে এলে তাকে অবশিষ্ট ২০০০ হাজার টাকা প্রদান করা হয়। এরপর খোদেজা বেগম আরো সদস্য সংগ্রহের জন্য ওই এলাকায় ঘোরাঘুরি করতে থাকেন।  এ সময় রাতের বেলা এলাকায় অপরিচিত এক নারীকে ঘোরাফেরা করতে  দেখে সন্দেহ হয় এলাকার লোকজনের। এ সময় তারা তাকে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। এলাকার মানুষের জিজ্ঞাসাাবদে তিনি জানান, ৭১’র সহযোগি মুক্তিযোদ্ধা পরিষদের সদস্য সংগ্রহ করছেন। তাঁর এমন কথায় লোকজনের মনে আরো ব্যাপক সন্দেহের উদ্রেক হয়। পরে এলাকাবাসী সৈয়দপুর থানা পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ এসে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যান। এসময় তাঁর কাছ থেকে ৭১ এর সহযোগি মুক্তিযোদ্ধা পরিষদের নামে তৈরিকৃত একটি পরিচয়পত্র, প্রাথমিক সদস্য পদের আবেদন ফরম ও নগদ ৩ হাজার ৯৪০ টাকা জব্দ করা হয়েছে।
 খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রতারক চক্রের নারী সদস্য খোদেজা বেগম এভাবে ওই এলাকার প্রায় অর্ধশতাধিক মানুষের কাছে থেকে বেশ কিছু টাকা হাতিয়ে নেয়। ওই এলাকার মোছা. জিন্নাতুন, মোছা. হাছিনা বেগম. লতিফা খাতুন, মহসেনা বেগম, আক্কাস আলী, মোছা. কুলছুমসহ আরো অনেকেই বলেন, আমরা খোজেদা বেগমের কথা সরল মনে বিশ্বাস করে ৭১ এর সহযোগি মুক্তিযোদ্ধা পরিষদের সদস্য হওয়ার জন্য প্রথম অবস্থায় নগদ ৫০০ থেকে ১১০০ টাকা পর্যন্ত টাকা দিয়েছি। এ ঘটনায় প্রতারণার শিকার গৃহবধূ মোছা. জোবেদা বেগম ওরফে জোবে নিজে বাদী হয়ে গত বৃহস্পতিবার রাতে সৈয়দপুর থানায় ওই মামলা করেন।
 সৈয়দপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আবুল হাসনাত খান  মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।  তিনি বলেন, মামলার আসামী খোজেদাকে আজ (শুক্রবার) আদালতের মাধ্যমে তাকে নীলফামারী কারাগারে পাঠানো হয়েছে।(

পুরোনো সংবাদ

সৈয়দপুর 6486960959355081456

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

শিল্প-সাহিত্য

ফেসবুক লাইকপেজ

তারিখ অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item