১৫ বিনিয়গকারীর ৭০ লাখ টাকা নিয়ে খামারি লাপাত্তা

বিশেষ প্রতিনিধি॥ প্রথমে গভীর বন্ধুত্ব গড়ে তোলা এরপর তার পোল্ট্রি খামারে নিয়ে গিয়ে মালিকানার শেয়ারের প্রলোভন। পৃথক পৃথক ভাবে ঠিক এ ভাবেই একজন দুইজন করে ১৫ জনকে বগলদাবা করে ফেলেন। এই ১৫ যুবকের শেয়ারের খামারের মালিকার নামে ৭০ লাখ টাকা হাতিয়ে পালিয়ে গেছে মশিউর রহমান হাসু নামের এক পোল্ট্রি খামারী। প্রতারনা অভিযোগে তার নামে ওই ১৫ য্বুক বিচারপ্রার্থী হয়েছে আদালতে।
 শুক্রবার(৪ অক্টোবর) ওই যুবকদের অভিযোগে জানা যায়, নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলা শহরের পশ্চিম পাটোয়ারী পাড়ার (মাছুয়াপাড়ার) মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে মশিউর রহমান হাসু। গত ৩ বছর ধরে তার বাড়ি সংলগ্ন জায়গায় দুটি পোল্ট্রি খামার চালিয়ে আসছেন।
এ দুই খামারে প্রায় ১০ হাজার ব্রয়লার মুরগী প্রতিপালন করতেন। লাভবান হওয়ায় তিনি পরিচিতজনদের উদ্বুদ্ধ করতেন এই ব্যবসায়। তার উদ্বুদ্ধকরণে বন্ধুমহলের ১৫ যুবক তার খামারে শেয়ারের মালিকানায় প্রলুব্ধ হয়ে প্রায় ৭০ লাখ টাকা বিনিয়োগ করেন।
এর মধ্যে সৈয়দপুর উপজেলার খাতামধুপুর ইউনিয়নের টিটো চৌধুরী ১০ লাখ, আমিনুল ৮ লাখ, মতিয়ার রহমান ৫ লাখ, আব্দুল হান্নান ৭ লাখ, মাসুদ রানা ১০ লাখ, মিতু ১০ লাখ, দুলাল ১০ লাখ, আব্বাস আলী শাহ ৮ লাখ, হিরো চৌধুরী ৫ লাখসহ প্রায় ১৫ জন মিলে ৭০ লাখ টাকা বিনিয়োগ করেন। সেখানে অনেক লাভ। ৪৫ দিন কিংবা দুইমাস পর পোল্ট্রি বিক্রি করলে বাড়বে পুজি। আর এমন সরল বিশ্বাসে এই বিনিয়োগ করা। তবে তার সুচতর দুরভিসন্ধি কেউ বুঝতে পারেনি। বছর না পেরুতেই হঠাৎ রাতের আধারে খামারের সকল মুরগি বিক্রি করে গা-ঢাকা দেয় হাসু। প্রথমে তার পরিবারের লোকজন বিভিন্ন কথা বলে সময় ক্ষেপন করে। এরপর দীর্ঘ ৩ মাস অতিক্রান্ত হলেও তার হদিস না মেলায় মাথায় হাত পরে ১৫ যুবকের।
নিশ্চয়তা হিসেবে হাসু প্রত্যেককে বিনিয়োগের পরিমানে টাকার অংক বসিয়ে ব্যাংকের চেক প্রদান করে। এতে বিশ্বাসের সাথে ঐক্যবদ্ধ হয়ে তারা খামার দুটি পরিচালনা করতেন।
প্রতারিত বিনিয়োগকারীরা আরো জানান, বিজ্ঞ আমলি আদালতে চেক ডিজঅনার মামলা দায়ের করেছেন তারা।বিনিয়োগকারী টিটো চৌধুরী জানান, সে আমার পরিচিত। তার মালিকানা শেয়ারের প্রলোভনে ১০ লাখ টাকা দেই। ব্যবসায় লোকসান দেখিয়ে টালবাহানা করে। কোন হিসেব দেয়না। এভাবে এক বছর কাটার পর জানতে পারি আমার মত আরো শেয়ারে বিনিয়োগকারী রয়েছে। পরে টাকার জন্য চাপ দিলে সে পালিয়ে যায়। তার বাড়িতে গিয়ে জানতে পারি বাড়িটিও তার ব্যাংকে বন্ধক রয়েছে। #

পুরোনো সংবাদ

সৈয়দপুর 4743200043989955813

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

শিল্প-সাহিত্য

ফেসবুক লাইকপেজ

তারিখ অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item