নীলফামারী সদর আধুনিক হাসপাতালে মেয়াদোত্তীর্ণ স্যালাইন নিয়ে তোলপাড়

ইনজামাম-উল-হক নির্ণয়,নীলফামারী ॥ চারমাস আগে স্যালাইনের মেয়াদ শেষ হয়েছে সেই মেয়াদোত্তীর্ণ স্যালাই দেয়া হচ্ছে নীলফামারী সদর আধুনিক হাসপাতালের রোগীদের। এমন অভিযোগ নিয়ে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে।
রবিবার বেলা ১২টার দিকে সিভিল সার্জন অফিসের সামনে রোগীদের পরিবারের স্বজনরা  বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করে। এ সময় সিভিল সার্জন ও পুলিশ ঘটনাটি তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনী ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দিলে বিক্ষোভকারীরা এক ঘন্টা পর এলাকা ত্যাগ করে। এ ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্তটিম গঠন করা হয়েছে।
নীলফামারী শহরের কলোনী মহল্লার আব্দুল ওয়াবের স্ত্রী মল্লিকা বেগম(৫৫) গ্যাস্ট্রিক ও বুকের ব্যাথা নিয়ে শনিবার (২১ সেপ্টম্বর) রাত ১০টায় হাসপাতালে এসে ভর্তি হয়। জরুরী বিভাগের চিকিৎসকের পরামর্শে ওই রোগীকে ওয়ার্ডের সেবিকা রোগীর শরীরে সোডিয়াম হাইড্রোক্লোরাট স্যালাই পুশ করা হয়।
রোগী মল্লিকা বেগমের ছেলে মো. সানোয়ার হোসেন (৩৪) অভিযোগ করে জানায় স্যালাই  চলাকালে দেখতে পাই আমার মাকে ১০১১৭০০৬ ব্যাচ নম্বরের ২০১৭ সালের মে মাসে উৎপাদিত ও   ২০১৯ সালের মে মাসে মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে যাওয়া সোডিয়াম হাইড্রোক্লোরাট স্যালাই পুশ করা হয়েছে। যা ওই স্যালাইয়ের মেয়াদ চার মাস আগে শেষ হয়ে গেছে। অথচ সেই স্যালাইন মায়ের শরীরে প্রবেশ করছে। তাৎক্ষনিকভাবে ওয়ার্ডের নার্সদের ডেকে এসে মা এর শরীর থেকে স্যালাই আউট করে দেয়া হয়। খবর পেয়ে আবাসিক মেডিকেল অফিসার সহ অন্যান্য ডাক্তাকরা ছুটে আসে।
হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায় রাতেই রোগীর লোকজন এসে হাসপাতালে উত্তেজনা সৃস্টি করলে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আজাহারুল ইসলাম ও পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এরপর আজ রবিবার দুপুর ১২টার দিকে রোগীর লোকজন এসে সিভিল সার্জন কার্যালয় ঘেরাও করে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করতে থাকে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) রুহুল আমিন, সদর থানার ওসি মোমিনুল ইসলাম সহ পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
এ ব্যাপারে সিভিল সার্জন ডা. রনজিৎ কুমার বর্মন এমন  ঘটায় দুঃখ প্রকাশ কররে বলেন হাসপাতালের চিকিৎসকরা তাৎক্ষনিক ভাবে ওই রোগীর প্রয়োজনী চিকিৎসা প্রদান করেছে । তবে ওই মেয়াদোত্তীর্ণ স্যালাইনে রোগীর শারীরিক কোন ক্ষতি হয়নি। তিনি যে রোগ নিয়ে ভর্তি হয়েছেন তার সু-চিকিৎসায় রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন।
 তিনি আরো জানান এ ঘটনায় হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট ডাঃ রেজাউল করিমকে প্রধান করে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করে আগামী তিন দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। তদন্ত শেষে দোষী ব্যক্তিদের আইনের আওতায় আনা হবে।#

পুরোনো সংবাদ

শিক্ষা-শিক্ষাঙ্গন 4398453727264184117

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item