গঙ্গাচড়ায় আগুনে ৩টি ঘর ভস্মীভূত

সফিয়ার কাজল, গঙ্গাচড়া (রংপুর) প্রতিনিধি ঃ 
রংপুরের গঙ্গাচড়ায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার, গবাদিপশুসহ প্রায় চার লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধিত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার খলেয়া ইউনিয়নের উত্তর মধ্যপাড়া গ্রামে। অভিযোগসূত্রে জানা যায়, উত্তর খলেয়া মধ্যপাড়া গ্রামের মৃত জছির উদ্দিনের ছেলে এহিয়ার রহমানের সাথে একই গ্রামের মৃত তফিল উদ্দিনের ছেলে আমিনুর ইসলাম ওরফে টোল্লার সাথে দীর্ঘদিন থেকে পারিবারিক ঝগড়া বিবাদ চলিয়ে আসছে।
এরই ধারাবাহিকতায় গত ০৪ সেপ্টেম্বর এহিয়ার পালিত ছাগল আমিনুরের ধান ক্ষেতে গেলে ঝগড়া বিবাদের সৃষ্টি হয়। এক পর্যাযে আমিনুর ইসলাম, রুবেল মিয়া, রব্বানী প্রকাশ্যে এহিয়াকে ঘর-বাড়িতে আগুন লাগিয়ে পুড়িয়ে মারার হুমকী দেন। এরই জের ধরে গত ০৮ সেপ্টেম্বর এহিয়ার স্ত্রী জরিনা বেগম সন্ধ্যা আনুমানিক ৭:০০ ঘটিকার সময় এহিয়ার বড় ভাই ইউনুসের বাড়িতে গেলে সুযোগ বুঝে রব্বানী উত্তর দুয়ারী গোয়াল ঘরের পিছনের বেড়াতে আগুন ধরিয়ে দিয়ে পালানোর চেষ্টা করে। এ সময় ওই বাড়িতে থাকা নুসরাত জাহান (৭) আগুন ধরিয়ে দেওয়ার বিষয়টি দেখতে পেলে রব্বানী নুসরাতকে ধাক্কা মেরে ফেলে দিয়ে পালিয়ে যায়। এসময় প্রতিবেশী গোলেজা বেগম, রানী বেগম, গোলাম রব্বানীকে দেখে চিনতে পায়। এদের চিৎকারে আশপাশ হইতে লোকজন এসে আগুন নিভানোর চেষ্টা করে এবং গংগাচড়া ফায়ার সার্ভিসকে সংবাদ দিলে ফায়ার সার্ভিস এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এতে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার, গবাদিপশুসহ প্রায় চার লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়। ক্ষতিগ্রস্থ এহিয়ার রহমান জানান, এ ব্যাপারে নব নির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান লাভলু মিয়াকে জানালে তিনি স্থানীয়ভাবে শালিসের মাধ্যমে মিমাংসার কথা বললেও পরে তা তিনি করেননি। এহিয়ার মিয়া নিরুপায় হয়ে গঙ্গাচড়া মডেল থানায় অভিযোগ দিয়েছেন। গঙ্গাচড়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মশিউর রহমান বলেন, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত স্বাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।  

পুরোনো সংবাদ

রংপুর 9059505526896189686

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item