বিয়ে করা হল না পুলিনের ॥ মাইক্রোবাসের ধাক্কায় প্রাণ গেল

ইনজামাম-উল-হক নির্ণয়,নীলফামারী ২৯ আগষ্ট॥  ঢাকায় সিএনজি চালিয়ে সংসারের হাল ধরেছিল নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার ঝুনাগাছচাঁপানী ইউনিয়নের দক্ষিন সোনাখুলি গ্রামে ভবেন্দ্র রায়ের ছেলে পুলিন চন্দ্র রায়(২৫)। বিয়ে করবে বলে কনে দেখতে এসেছিল গ্রামের বাড়িতে। কিন্তু তার কনে দেখা ও বিয়ে করা হলোনা। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় গ্রামের বাজারে খরচ করতে এলে সড়কে মাইক্রোবাসের ধাক্কায় পুলিন গুরুত্বর আহত হয়। তাকে দ্রুত নেয়া হয় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। সেখানে ঘটনার দিন রাত ৯টায় সে মৃত্যুর মুখে ঢলে পড়ে। তিন ভাই বোনের মধ্যে পুলিন সকলের বড়।

 এলাকাবাসী মাইক্রোবাসটি (ঢাকা মেট্রে-চ ১১-৪২৭৭ ) আটক করলেও এর চালক পালিয়ে যায়। ডিমলা থানা পুলিশ মাইক্রোবাসটি থানায় নিয়েছে।
এদিকে পুলিনের সড়ক দুঘটনায় মৃত্যু বরন মেনে নিতে পারছেনা পরিবারের লোকজন। তারা এখন চোখে মুখে অন্ধকার দেখছে। দীর্ঘ কয়েক বছর বছর ঢাকার রাস্তায় সিএনজি চালিয়ে আয় করে এক বোনের বিয়ে দিয়েছে পুলিন। ছোট ভাই স-ুদাস চন্দ্র রায়কে কলেজে ভর্তি করে পড়াশুনা করাচ্ছে।ছোটভাই সুমন চন্দ্র স্কুলে পড়ছে। পরিবারের লোকজন পুলিনের বিয়ের জন্য কনে দেখেন। ঘটনার দুইদিন  আগে ঢাকা থেকে বাড়ী আসে পুলিন। কনের বাড়ীর লোকজন বিয়ে দিনক্ষন ঠিক করার জন্য বৃহস্পতিবার দুপুরে পুলিনের বাড়িতে আসার কথা। এ জন্য পুলিন আগের দিন বুধবার সন্ধ্যায় স্থানীয় চাঁপানী বাজারে গিয়েছিল মেহমানদের জন্য খরচ করতে। যাওয়ার পথেই মাইক্রোবাসের ধাক্কায় তার প্রাণ গেল। একমাত্র কর্মক্ষম ছেলেকে হারিয়ে পাগল প্রায় বাবা ভবেন্দ্র রায় ও মাতা মিনতী রানী। ডিমলা থানার ওসি মফিজ উদ্দিন শেখ বলেন, মাইক্রোবাসটি আটক করা হয়েছে।#


পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 1356253519517050868

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

শিল্প-সাহিত্য

ফেসবুক লাইকপেজ

তারিখ অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item