নীলফামারীতে বন্যায় আক্রান্ত ২৮ হাজার মানুষ

ইনজামাম-উল-হক নির্ণয়, নীলফামারী ॥ বন্যায় নীলফামারীর দুই উপজেলায় ২৮ হাজার ২১৮ জন মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। তারা ডিমলা ও জলঢাকা উপজেলার তিস্তা  নদীর তীরবর্তী ১১টি ইউনিয়নের বাসিন্দা। এদিকে আজ শনিবার তিস্তা নদীর বন্যা পরিস্থিতি বেশ উন্নতি ঘটেছে। নদীর পানি বিপদসীমার ৩০ সেন্টিমিটার নিচে নেমে এসেছে।
তিস্তার বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে ডিমলা উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের ১৯ হাজার ৯২৬ জন এবং জলঢাকা
উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের ৮ হাজার ২৯২ জন রয়েছেন।ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের মধ্যে ডিমলায় ১৫০ মেট্রিক টন চাল, ২লাখ ৫০ হাজার টাকা ও ২ হাজার প্যাকেট এবং জলঢাকা উপজেলায় ৪১.৪৬০ মেট্রিক টন চাল এবং ২শ প্যাকেট শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে। বন্যা দুর্গত এলাকার মধ্যে ডিমলায় ১১টি এবং জলঢাকায় ১২টি মেডিক্যাল টিম কাজ করছে।
জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, ক্ষতিগ্রস্ত ইউনিয়নগুলোর মধ্যে রয়েছে পূর্ব ছাতনাই, টেপাখড়িবাড়ি, ঝুনাগাছ চাপানী, গয়াবাড়ি, খালিশা চাপানি, পশ্চিম ছাতনাই, খগাখড়িবাড়ি এবং জলঢাকা উপজেলার শৌলমারী, গোলমুন্ডা, কৈমারী, ডাউয়াবাড়ি ইউনিয়ন।
এ ছাড়া অতিবৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলের ফলে ৪০ কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা, প্রায় সাড়ে তিন কিলোমিটার পাকা রাস্তা, ৫টি ব্রিজ, সাড়ে আট কিলোমিটার বাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কৃষি সেক্টরে জেলার সাড়ে ৪৪ হেক্টর স¤পূর্ণ এবং সাড়ে ৬৭ হেক্টর জমির ফসল ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বন্যাকবলিতদের জন্য পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে। প্রয়োজন অনুসারে বরাদ্দ দেয়া হবে বলে জানান জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী। #

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 6524433423566919254

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

শিল্প-সাহিত্য

ফেসবুক লাইকপেজ

তারিখ অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item