নাগেশ্বরীতে শংকোষ নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন ,হুমকীতে ব্রিজ, বসতবাড়ি ও ফসলি জমি

হাফিজুর রহমান হৃদয়,  কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি:
কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে শংকোষ নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে আসছে স্থানীয় কয়েকজন বালু ব্যবসায়ী। হুমকির মুখে পড়েছে শংকোষ ব্রিজ, ফসলি জমি ও আশপাশের বেশকিছু বসতবাড়ী।
সরেজমিনে দেখা গেছে, উপজেলার কচাকাটা শংকোষ নদীতে দীর্ঘদিন ধরে ব্রিজের মাত্র ৭০ গজ দূরত্ব থেকে এক কিলোমিটারের মধ্যে ৯টি ড্রেজার মেশিন বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে স্থানীয় ইউপি সদস্য গাজীউর রহমান, আয়নাল হোসেন, কাছুয়া, বাচ্চু মিয়া, আতাউর রহমানসহ বেশ কয়েকজন অবৈধ বালু ব্যবসায়ী। অথচ গত কয়েক মাস ধরে এখানে তারা ৩-৪টি ড্রেজার মেশিনে নিয়মিত বালু উত্তোলন করে আসছিল। আষাঢ়ের কয়েকদিনের বৃষ্টিতে নদীতে পানি বৃদ্ধি পেলে প্রতিযোগিতা দিয়ে বাড়িয়েছেন এর সংখ্যা। বর্তমানে ৯টি ড্রেজার মেশিন দিয়ে সারদিন চলছে বালু উত্তোলন। এতে দেবে যাচ্ছে নদী তীরবর্তী জমি, দেখা দিয়েছে ভাঙ্গন, বড় বড় গর্ত হয়ে হুমকির মুখে পড়েছে শংকোষ ব্রিজ ও আশেপাশের বসতবাড়ী।
স্থানীয় আজাদ আলী (২৮), মফিজুল ইসলাম (৩০), ব্রিজের সংলগ্ন দোকানদার রেজাউল ইসলাম (৩৫), আবু বকর সিদ্দিক (৩৭)সহ স্থানীয়রা বলেন এভাবে বালু উত্তোলন করায় ব্রিজটি যেমন হুমকীর মুখে পড়েছে, তেমনি নদী তীরবর্তী আমাদের জমিগুলোও দেবে যাচ্ছে। এ বিষয়ে বিভিন্ন জায়গায় জানানো হলে কয়েকদিন বন্ধ থাকার পর আবারও শুরু হয় বালু উত্তোলন। আমরা কোনোভাবে থামাতে পারছি না। প্রভাব খাটিয়ে তারা এভাবে অবাধে বালু উত্তোলন করে আসছে।
বালু ব্যবসায়ী ইউপি সদস্য গাজীউর রহমান জানান, অনেকেই এখান থেকে এভাবে বালু তোলেন তাই আমিও তুলছি। বালু উঠালে ক্ষতি তো একটু হবে। এ বিষয়ে জানতে কচাকাটা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল আউয়ালের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন করলেও তিনি রিসিভ করেননি। ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার আল-ইমরান বলেন অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পুরোনো সংবাদ

কুড়িগ্রাম 4914802902897036514

অনুসরণ করুন

মুজিব বর্ষ

Logo

সর্বশেষ সংবাদ

শিল্প-সাহিত্য

ফেসবুক লাইকপেজ

তারিখ অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item