চিলাহাটি রেলস্টেশনে টিএক্সআর ও স্টেশন মাস্টার দ্বন্দ চরমে।আন্ত-নগর রুপসা ২ ঘন্টা অবরুদ্ধ

এ.আই.পলাশ.চিলাহাটি,নীলফামারী প্রতিনিধিঃনীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলার চিলাহাটি রেলস্টেশনের স্টেশন মাস্টারের পুরনো বিল্ডিং নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত স্টেশন মাস্টার ও ইঞ্জিনিয়ারিং সেকশন (টিএক্সআর)-এর সঙ্গে দ¦ন্দ চরম আকার ধারণ করেছে।আজ সোমবার(২৭ মে) সকাল ৭ টার দিকে রেল স্টেশনে টিএক্সআর হাসনাত দলবল নিয়ে হাতে লোহার রড ও হাতুরি নিয়ে স্টেশন মাস্টার আশরাফুলের উপর হামলা চালার চেষ্টা চালায়। ইতিমধ্যে ৭ টা ৫৫ মিনিটে খুলনা গামী আন্ত-নগর রুপসা ট্রেনটি চিলাহাটি স্টেশনে প্রবেশ করে।প্রত্যক্ষদর্শী ট্রেনের বেশকিছু যাত্রী জানায়, সেই সময় ট্রেনে যাওয়া আসার যাত্রীগন আতংকিত হয়ে ছোটোছুটি করতে থাকে। টিএক্সআর-এর লোকজন সেই আন্ত-নগর ট্রেনটিকে ২ ঘন্টা আটক করে রাখে। পরে যাত্রী সাধারন তাদের বিড়ম্বনা নিয়ে স্টেশন মাস্টারের কাছে ট্রেন আটকের কৈফিয়ত চাইতে গেলে টিএক্সআর-এর লোকজন জনসাধারনের চাপের মুখে ট্রেনটি ২ ঘন্টা বিলম্বে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়।তবে ট্রেনটির সাপ্তাহিক বন্ধ না আসা পর্যন্ত এই বিলম্ব সময় পুরন না হবার সম্ভাবনাই বেশী।এতে ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের বিড়ম্বনার সম্ভাবনা থেকেই যাচ্ছে।স্টেশন মাস্টার আশরাফুল ইসলাম জানান,রেল বিভাগের দুই পক্ষের উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের কাছে চিঠি চালাচালির এক পর্যায়ে গত শুক্রবার( ২৪শে মে ) তার অনুপস্থিতিতে টিএক্সআর হাসনাত তার দলবল নিয়ে তালা ভেঙ্গে তিনটি রুমের মধ্যে একটি রুম দখল করে স্টেশন মাস্টারের রক্ষিত বেশকিছু সরকারি জিনিসপত্র ও বেডিং অফিসের সাইনবোর্ড ফেলে দেয়। এতে সরকারি সম্পদের বেশকিছু ক্ষতি সাধন হয়। অথচ রেল বিভাগ কর্তৃক স্টেশনের দক্ষিণ প্রান্তে ইঞ্জিনিয়ারিং সেকশন টিএক্সআর-এর জন্য বেশ কয়েকটি ঘর নির্মান করা হয়।কিন্তু তাদের স্থান ভুলে গিয়ে রেলস্টেশন প্লাট ফরমের উপরেই স্টেশন মাস্টারের তিন রুম বিশিষ্ট কক্ষগুলোর উপর দৃষ্টি পড়ে।তিনিঅভিযোগ করে বলেন,যেকোন ঘটনা ঘটলেই টিএক্সআর-এর লোকজন সাধারন ট্রেন যাত্রী সেবার কথা ভুলে গিয়ে তারা মিথ্যা অজুহাত দিয়ে প্রায় ট্রেন আটক রাখে। তিনি আরো বলেন, শত শত ট্রেন যাত্রী ও স্থানীয় ব্যক্তিদের সামনে টিএক্সআর হাসনাত তার দলবল নিয়ে আমাকে জীবননাসের হুমকি দিয়ে বেডিং অফিসের কর্মরত লেবু মিয়াকে মারধর করে,আমাকে অকথ্য খারাপ ভাষায় গালিগালাজ করে। তবে আমি উর্দ্ধতন কতৃপক্ষের কাছে অভিযোগপত্র দাখিল করেছি। অপরদিকে টিএক্সআর হাসনাতের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি জানান,উর্দ্ধতন কতৃপক্ষের নির্দেশে রুমটি আমাদের দখলে নেয়া হয়েছে। একাধিক যাত্রী মন্তব্য প্রকাশ করে বলেন, বিষয়গুলি নিয়ে রেল বিভাগের উর্ধ্বতন কর্তিপক্ষের সু-দৃষ্টি দেয়া একান্ত প্রয়োজন। তা না হলে যেকোন সময় এ বিষয়টি বড় আকার ধারণ করতে পারে।

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 1198378486209129673

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

শিল্প-সাহিত্য

ফেসবুক লাইকপেজ

তারিখ অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item