ফলোআপ-সৈয়দপুর রেলওয়ে স্টেশনে পাওয়া শিশু মানিকের বাবা-মা’র সন্ধান মিলেছে

তোফাজ্জল হোসেন লুতু,সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:

 সৈয়দপুর রেলওয়ে স্টেশনে পাওয়া শিশু মানিকের বাবা-মা’র খোঁজ মিলেছে। আজ(শুক্রবার) তারা গাজীপুরের কালিকাকৈর থেকে শিশু মানিককে নিতে সৈয়দপুরে ছুঁটে আসেন।  সৈয়দপুর রেলওয়ে থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) লুৎফর রহমানের অফিসে বসে আজ (শুক্রবার) বিকেলে তাদের সাথে কথা এ প্রতিনিধি’র।
শিশু মানিকের মা ফাতেমা বেগম বেবী জানান, তাঁর প্রথম আদরের শিশু পুত্র কাউছার মিয়া মানিক (৯)। তাঁর আরও একটি শিশু পুত্র রয়েছে। তাঁর নাম রতন (১)। তাদের আদি বাড়ি কুমিল্লা সদরের গোবিন্দপুর হলেও জীবনজীবকার তাগিদে বর্তমানে তারা ঢাকা গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার রতনপুরে ভাড়া বাসায় থাকেন। তাঁর স্বামী খোরশেদ মিয়া  আগে সুস্থ, সবল ছিলেন ; রিক্সা চালাতেন। বর্তমানে তিনি অ্যাজমা রোগে আক্রান্ত। কোন কাজকর্ম করতে পারেন না। স্বামীর অসুস্থতার কারেণ ফাতেমা বেগম বেবী বিভিন্ন জনের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করে। আর  শিশু পুত্র মানিক গাড়ি গাড়ি  উঠে পানি বিক্রি করে। মূলত তাদের দু’জনের আয়ের চলে ৪ সদস্যের পরিবারটি। গত ২৫ জুন ঈদুল ফিতরের আগে দিন শিশু মানিক পানি বিক্রির জন্য বাড়ি থেকে বের হয়। ওই দিন সে আর বাড়িতে ফিরেনি। এ অবস্থায় সম্ভাব্য সকল জায়গায় খোঁজ-খবর করেও সেদিন আর তাঁর কোন খোঁজ মিলেনি। এ অবস্থায় আত্মীয়-স্বজন সহ বিভিন্ন স্থানে সন্ধান করে খোঁজ না  পেয়ে ২৯ জুন মা ফাতেমা বেগম বেবী শিশু পুত্র মানিকের নিখোঁজের বিষয়ে কালিয়াকৈর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। পরবর্তীতে কালিয়াকৈর স্টেশনের মাধ্যমে শিশু মানিক যে সৈয়দপুরে এসেছে বলে জানতে পারি। এরপ শিশু মানিকের খোঁজে সৈয়দপুরে ছুঁটে আসেন তাঁর বাবা-মা। মা বেবী আরো জানান, শিশু পুত্র মানিক যত্রতত্র ঘুমিয়ে পড়ে। সম্ভবত ট্রেনে উঠে পানি বিক্রিকালে ঘুমিয়ে পড়েছিল সে। আর ওই ট্রেনে সে সৈয়দপুর রেলওয়ে স্টেশনে এসে নামে।
সৈয়দপুর রেলওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এ কে এম লুৎফর রহমান জানান, আমরা আইনশৃংখলাবাহিনী সদস্য হিসেবে নিজের দায়িত্ব ও কর্তব্য হিসেবে স্টেশনে শিশু মানিককে পেয়ে যথাযথ কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবহিত করি। কিন্তু সে সময় শিশু মানিক তার  বাবা-মা ও বাড়ির সঠিক  নাম-ঠিকানা বলতে না পরায় উর্ধ্বতন কর্মকর্তার নির্দেশে তাকে রংপুরে সমাজ সেবা অধিদপ্তর পরিচালিত শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুর্নবাসন কেন্দ্রে পাঠানো ব্যবস্থা করি। পরবর্তীতে আজ যেহেতু শিশুটির বাবা-মা তাঁর খোঁজে এসেছেন। তাই আমরা শিশুটিকে তাঁর বাবা-মায়ের হাতে তুলে দিতে যথাযথ ব্যবস্থা নিয়েছি।  সৈয়দপুর রেলওয়ে থানা পুলিশ সদস্যের সাথে করে তাঁর বাবা-মাকে রংপুর রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুর্নবাসন কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে সকল প্রক্রিয়া শেষে শিশু মানিককে তাঁর বাবা-মায়ের হাতে তুলে দেয়া হবে বলে জানান তিনি
প্রসঙ্গত, গত ২৮ জুন দুপুরে সৈয়দপুর রেলওয়ে স্টেশনে অহেতুক ঘোরাঘুরি করার সময় জিআরপি পুলিশ শিশু মানিককে উদ্ধার করেন। পরবর্তীতে ওই দিনই (বুধবার) বিকেলে তাকে  রংপুর শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রে পাঠানো হয়। সৈয়দপুর রেলওয়ে স্টেশনে পাওয়া শিশু মানিনকে নিয়ে অনলাইন নিউজ পোর্টাল অবলোকনে একটি সংবাদ গতকাল বৃহস্পতিবার প্রকাশিত হয়েছে।নিচে সংবাদের লিংকটি দেয়া হলো- সৈয়দপুর রেলওয়ে স্টেশনে পাওয়া শিশু মানিককে রংপুর শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে       

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 3118262061115924693

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item