কিশোরগঞ্জে গাঁজা খেতে বাঁধা দেওয়ায় ও যৌতুকের দাবিতে গৃহবধুকে নির্যাতন

মোঃ শামীম হোসেন বাবু,কিশোরগঞ্জ,নীলফামারীঃ
নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার পুটিমারী ইউনিয়নের কালিকাপুর লাল জুম্মা পাড়া গ্রামে নেশাখোর স্বামীর নির্যাতনে রক্তাক্ত জখম হয়ে হাসপাতালের বিছানায় যন্ত্রনায় কাতরাচ্ছেন গৃহবধু রোজিনা বেগম( ২২)। তার চোখ, কোমরের দুপাশ, গলা, পিঠ,ও শরীরের এমন কোন স্থান নেই যেখানে নির্যাতন করা হয়নি। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।
সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, পুটিমারী ইউনিয়নের কালিকাপুর গ্রামের নুর ইসলামের মেয়ে রোজিনা বেগমের সাথে প্রায় ৪ বছর আগে বিয়ে হয় একই গ্রামের নুরুল হকের ছেলে জাহেনুর ইসলাম ওরফে সাদ্দাম হোসেনের। বিয়ের পর ভালই চলছিল তাদের সংসার জীবন। বিয়ের দুই বছরের মাথায় তাদের কোল জুড়ে আসে একটি কন্যা সন্তান। কন্যা সন্তান জ¤েœর পর হতে জাহেনুর বিভিন্ন সময় নেশা করে বাড়িতে এসে তার স্ত্রীকে মারধর করত। এবং তাঁকে যৌতুক বাবদ তার বাবার কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা নিয়ে আসতে বলে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়াঝাটি লেগেই থাকত। ঘঁটনার দিন বুধবার সকাল আটটার  সময়  স্বামী জাহেনুর তার অন্যান্য বন্ধুদের সাথে নিয়ে ঘরের মধ্যে গাাঁজা সেবন করতে থাকে। গাঁজা সেবন করতে বাঁধা দিলে জাহেনুর লাঠি দিয়ে তার স্ত্রী গৃহবধু রোজিনা বেগমকে পেটাতে শুরু করে। এর একপর্যায়ে মেয়েটি অঞ্জান হয়ে পড়লে জাহেনুর তাঁকে ফেলে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। এলাকাবাসী মেয়েটির অবস্থা বেগতিক দেখে তার পিতা মাতাকে খবর দিলে তারা তাঁকে উদ্ধার করে কিশোরগঞ্জ হাসপাতালে এনে ভর্তি করে। জাহেনুর ইসলামের সাথে কথা বলার জন্য তার সাথে যোগাযোগ করার চেষ্ঠা করে তাঁকে পাওয়া যায়নি। পুটিমারী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবু সায়েম লিটন বলেন, ঘটনাটি অত্যান্ত দুঃখ জনক। এভাবে মানুষ কাউকে নির্যাতন করে তা আমার জানা নেই।
কিশোরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বজলুর রশিদ বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি তবে এখন পর্যন্ত লিখিত অভিযোগ পাইনি। লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 2064527867730848546

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item