দিনাজপুরে হাবিপ্রবিতে সাবেক ও বর্তমান ভিসি দ্বন্দে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা কার্য্যক্রম ব্যাহত

আব্দুস সাত্তার, দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥
দিনাজপুরে হাজী দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে সাবেক ভিসি প্রফেসর মো রুহুল আমীন ও বর্তমান ভিসি প্রফেসর ড.মু. আবুল কাসেম এর দ্বন্দে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা কার্য্যক্রম ভেস্তে যেতে বসেছে। তাদের দ্বন্দ বর্তমানে এমন এক পর্যায়ে এসেছে যে, উভয়েই পাল্টা-পাল্টি সংবাদ সম্মেলন করছে। উভয় উভয়কে মিথ্যাচার বলে আখ্যায়িত করছে।বুধবার সাড়ে ১১টায় সময় হাবিপ্রবি প্রাঙ্গনে ভিসি প্রফেসর ড.মু. আবুল কাসেম এর মদদে প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামের সভাপতি প্রফেসর মোঃ রুহুল আমিন এর  রুম ভাংচুরের প্রতিবাদে মানববন্ধনের পর হাবিপ্রবি টিএসসিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরাম। সংবাদ সম্মেলনে প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. বলরাম রায় লিখিত বক্তব্যে বলেন, গত ১১ জুন ’১৭ তারিখে প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামের সভাপতি প্রফেসর মোঃ রুহুল আমিন এর চেম্বারে বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু সিনিয়র শিক্ষকবৃন্দ বসে আলাপ করছিলেন। এমন সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিএসসি এগ্রিকালচারাল এন্ড এগ্রিবিজনেস (অর্নাস) এর কিছুৃ সংখ্যক আন্দোলনকরী ছাত্র-ছাত্রী ভিসি প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম এর সরাসরি মদদে তার কক্ষে অতর্কিত হামলা চালায়। ছাত্র-ছাত্রীরা মিছিল নিয়ে এসে জোরপূর্বক প্রবেশ করে প্রফেসর মোঃ আনিস খান ও প্রফেসর এ.টি.এম শফিকুল ইসলামকে ধাক্কা দিয়ে কক্ষের মেঝেতে ফেলে দেয়। পরবর্তীতে জোর করে প্রফেসর মোঃ রুহুল আমিনের মোবাইল ফোন কেড়ে নেয়ার চেষ্ঠা করে। এবং জানালার কাচ ভাংচুর করে। ঘটনার জেরকে কেন্দ্র করে বি.এসসি.এগ্রিকালচার এন্ড ্এগ্রিবিজনেস (অনার্স)কে বি.এসসি.এগ্রিকালচার (অনার্স)  করার জন্য  ছাত্র-ছাত্রীরা আন্দোলন করছিল। তাদের এই ধারাবাহিক আন্দোলন হঠাৎ করে ভিসির প্রত্যক্ষ নির্দেশে শিক্ষক তারিকুল ও সৌরভ পাল চৌধুরীর সাথে এগ্রিবিজনেস এর কিছু সংখক ছাত্র-ছাত্রী তাদের রুমে মিটিং করে আকস্কিক এই হামলা চালায়। হামলার ইন্ধন হিসেবে এগ্রিবিজনেস এর ছাত্র-ছাত্রীদের যে কারনটি বলা হয়েছে সেটি হলো তাদের ডিগ্রি পরিবর্তনের বিরুদ্ধে একটি সভা হচ্ছে যা সম্পুর্ন ভিত্তিহীন, পরিকল্পিত ও মিথ্যাচার। প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে প্রথম এ ধরনের ন্যাক্কার জনক ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জ্ঞাপন করছি। সেই সাথে প্রশাসন ঘটনা পরবর্তী এই বিষয়টিকে ছাত্র-ছাত্রীদের শ্লীলতাহানীর অভিযোগ এনে আন্দোলনকারী ছাত্র-ছাত্রীদেরকে ব্যবহার করে এর বাস্তবতাকে ধামাচাপা দেয়ার জন্য যে নিন্দনীয় কাজটি করেছে, এর ফলে প্রশাসন তার নৈতিক মূল্যবোধ ও সততার পদঙ্খলন ঘটিয়েছে বলে প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরাম মনে করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম ছাত্র-ছাত্রীদেরকে ব্যবহার করে শিক্ষার  স্বাভাবিক পরিবেশকে নষ্ট করার যে নগ্ন খেলায় মেতে উঠেছে এর দ্বারা শিক্ষার মান উন্নয়ন তো দুরের কথা বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের গতিও মন্থর হচ্ছে। প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামের সভাপতি এ বিশ্ববিদ্যালয়ের দীর্ঘদিন যিনি মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও বঙ্গবন্ধুর আর্দশ ধারন ও লালন করে এসেছেন, যার নের্তৃত্বে স্বাধীনতার স্বপক্ষের শিক্ষকরা ঐক্যবদ্ধ থেকে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নে অগ্রনী ভুমিকা পালন করছেন।  বর্তমানে আমরা স্বাধীনতার স্বপক্ষের সকল শিক্ষকবৃন্দ নিজেদেরকে অনিরাপদ অনুভব করছি। বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় থাকার পরেও বিএনপি-জামাত এর শিক্ষক,কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সাথে আঁতাত করে বর্তমান ভিসি ড.মু.আবুল কাসেম প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামের সভাপতির রুম ভাংচুর ও অন্যান্য শিক্ষকদের যে হেনস্তা শুরু করেছেন তা অত্যন্ত দুঃখজনক অনভিপ্রেত। হাবিপ্রবিতে নতুন ভিসি যোগদান করার পর বাংলাদেশ ছাত্রলীগ হাবিপ্রবি, প্রগতিশীল কর্মকর্তা পরিষদ ও প্রগতিশীল কর্মচারী পরিষদকে বিভক্ত করেই ক্ষান্ত হননি, তিনি জাতির বিবেক প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামকেও দু ভাগে ভাগ করার জোরালো পদক্ষেপ নিয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে এধরনের নিন্দনীয় ঘটনা পুনরাবৃত্তি না করে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাভাবিক পরিবেশ বজায় রাখার জন্য আহবান জানাচ্ছি। সরকারে উচ্চ পর্যায়ে বিষয়টির সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে শক্তিশালী তদন্ত কমিটি গঠনের মাধ্যমে বিচার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার দাবী জানাচ্ছি। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাবেক ভিসি প্রফেসর মোঃ রুহুল আমীন ড. আব্দুল্লাহ আল মামুন, ড. ফেরদৌস মেহবুব, প্রফেসর ড. এ.টি.এম শফিকুল ইসলাম,প্রফেসর ড. মোঃ আনিস খাঁন, প্রফেসর ড. হারুন উর রশীদ, জনাব  মোঃ আব্দুর রশীদ, প্রফেসর ড. মোঃ নাজিম উদ্দিন ও প্রফেসর ড. মোঃ মামুন উর রশীদ প্রমূখ। সংবাদ সম্মেলনে প্রিন্ট ও ইলেট্রিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।  বর্তমানে সাবেক ও বর্তমান ভিসির দ্বন্দের কারনে বিশ্ববিদ্যালয় যে কোন সময় অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতে পারে বলে এলাকাবাসীরা তাদের অভিমত ব্যক্ত করেন।  

পুরোনো সংবাদ

শিক্ষা-শিক্ষাঙ্গন 1612219721264480453

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item