জাপানী নাগরিক হোসি কোনিও হত্যাকান্ড মামলায় ময়না তদন্তকারী চিকিৎসকসহ ৭ জন সাক্ষি দিলেন

মামুনুর রশিদ মেরাজুল  ঃ 

রংপুরের কাউনিয়ার চাঞ্চল্যকর জাপানী নাগরিক হোসিও কোনি (৬৬) হত্যা মামলায় ৭ উগ্রবাদি জেএমবির বিচারের জন্য সপ্তম দিনে ময়না তদন্তকারী ৪ চিকিৎসক, উগ্রবাদি জঙ্গি সাঈদের বাড়ি ও দোকানপাটের ৩ প্রতিবেশীর সাক্ষ্য গ্রহন করেছে আদালত। এসময় ময়না তদন্তকারী চিকিৎসক দল আদালতকে নিশ্চিত করেন গানশর্টের গুলিতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারনেই তার মৃত্যু হয়েছিল। বুক, গলায় ও ডান হাতে গুলিবিদ্ধ ছাড়াও তার শরীরে আটটি ইনজুরি ছিল। এ নিয়ে ৫৬ সাক্ষির মধ্যে ৪০ জনের সাক্ষ্য নিলো আদালত। মঙ্গলবার রংপুর স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক নরেশ চন্দ্র সরকার এই স্বাক্ষ্য নেন। পরবতী শুনানী হবে ২ ও ৫ ফেব্রয়ারী।

রংপুর স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটর(পিপি) এ্যাডভোকেট রথিশ চন্দ্র ভৌমিক বাবুসোনা জানান, মঙ্গলবার আদালতে আসামীদের উপস্থিতিতে ময়তনা তদন্তকারি ৪ চিকিৎসক তৎকালিন রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা: রফিকুল ইসলাম, এনাটমি বিভাগের সহকারি অধ্যাপক নারায়ন চন্দ্র সাহা, রবি শংকর মন্ডল ও হরেন্দ্র নাথ এবং উগ্রবাদি জঙ্গি আবু সাইদের পীরগাছার কালিগঞ্জের স্টুডিও ব্যবসার এলাকাবাসি জমসেদ আলী, মতিয়ার রহমান এবং মঞ্জু মিয়া সাক্ষি দেন।

পিপি রথিশ চন্দ্র ভৌমিক জানান, সাক্ষ্য দেয়ার সময়  ময়না তদন্তকারি ৪ চিকিৎসক তৎকালিন রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা: রফিকুল ইসলাম, এনাটমি বিভাগের সহকারি অধ্যাপক নারায়ন চন্দ্র সাহা, রবি শংকর মন্ডল ও হরেন্দ্র নাথ আদালতকে জানান, কোনিও হোসির বুকে, গলায় ও ডান হাতে গুলি লেগেছিল। গুলিগুলো ছিল গানশর্টের। বুলেট বিদ্ধ হয়ে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের জন্যই তার মৃত্যু হয়েছে। তার শরীরে মোট ৮ টি ইনজুরি ছিল।

পুরোনো সংবাদ

রংপুর 5242225742466202440

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item