ভিখারির ছেলে জাবেদকে নীলফামারীর ডিসির সহায়তা


ইনজামাম-উল-হক নির্ণয়,নীলফামারী ৩১ জানুয়ারী॥
সেই ভিখারী জোসনা বেগমের(৫৫) ছেলে ষষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্র জাবেদকে সহায়তা প্রদান করেছে নীলফামারীর জেলা প্রশাসক জাকীর হোসেন। মঙ্গলবার বিকালে জেলা প্রশাসকের কক্ষে মা ও ছেলের হাতে আর্থিক সহায়তার চারহাজার টাকা সহ   দুইটি কম্বল তুলে দেয়া হয়। এ সময় উপস্থিত সহকারী কমিশনার     (নেজারত) সুফল চন্দ্র গোলদার, জেলা নাজির ইউনুফ আলী, পলাশবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগতা আনোয়ারুল ইসলাম।
ডিসির কাছ হতে নগদ অর্থ ও কম্বল পেয়ে আনন্দে আতœহারা হয়ে পড়ে মা ও ছেলে।
এ সময় জোসনা বেগম বলেন আমি ডিসি সাহেরে কক্ষে গিয়ে কোনদিন  চেয়ারে বসে ডিসির সঙ্গে কথা বলতে পারবো তা কখনো স্বপ্নেও ভাবিনি। কিন্তু আজ সেটি বাস্তব হলো। আমাকে ডেকে নিয়ে ডিসি টাকা ও কম্বল দিয়েছে। আমি ডিসি স্যারের জন্য সব সময় দোয়া করবো।
জেলা প্রশাসক জাকীর হোসেন তাদের আশ্বস্ত করে বলেন যে কোন সমস্যা ও সহযোগীতায় তাদের পাশে থাকবেন তিনি।
উল্লেখ সম্প্রতি বিভিন্ন  দৈনিক পত্রিকা ও অনলাইন পোর্টালে  ভিখার টাকায় সন্তানের লেখাপড়া- মা স্বপ্ন দেখেন ডাক্তার বানানোর সহ বিভিন্ন শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশ পায়। ্ওই প্রতিবেদন প্রকাশের পর জাবেদের খোজ খবর নেন অনেকে। তারই ধারাবাহিকতায় নীলফামারী জেলা প্রশাসক জাকীর হোসেন ওই মা ও ছেলে কে সহায়তা প্রদান করেন।
প্রকাশ থাকে যে স্বামী সহিদুল ইসলাম দ্বিতীয় বিয়ে করে জোসনা বেগমকে  ছেড়ে চলে যান। একমাত্র ছেলে   ষষ্ঠ শ্রেনীতে পড়ুয়া  জাবেদ আলীকে ঘিরে মায়ের স্বপ্ন ছেলেকে ডাক্তার বানাবেন। তাই ছেলের  লেখাপড়ার খরচ জোগাতে  অর্থনৈতিক সংকটে ভিক্ষায় নামেন এই মা।  তিনি নীলফামারীর সৈয়দপুরের রেলওয়ে স্টেশন সহ ওই এলাকার বিভিন্নস্থানে  ভিক্ষা করতেন। নিজেও অসুস্থ্য এই জোসনা বেগম। দুই চোখ দিয়ে পানি ঝরে তার। চোখের চিকিৎসা করাতে ডাক্তার দেখাতে পারছেনা। ভিক্ষায় যা আয় হয় তা ছেলের জন্য জমা করতেন। জাবেদ নীলফামারী সদরের  পলাশবাড়ী পরশমনি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ক শাখার ছাত্র। তার রোল নম্বর ৭। সে নীলফামারী সদরের পূর্ব পলাশবাড়ির আরাজি হাটখোলা গ্রামে  বড় বোন নুরন্নাহার ও ভ্যান চালক দুলাভাই ওমর আলীর বাড়িতে থেকে সে লিখাপড়া করছে। আর তার মা ছেলের খরচ বহনে লজ্জায় এলাকা ছেড়ে সৈয়দপুর রেলষ্টেশনে আশ্রয় নিয়ে ভিক্ষা করতেন।  এদিকে  ইউনিয়ন পরিষদ হতে জোসনা বেগমকে প্রতিবন্ধী ভাতার কার্ড করে দেয়া হয়েছে বলে জানান পলাশবাড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান  চেয়ারম্যান মমতাজ  ও তার ৫ নম্বর ওয়ার্ডে রমেম্বার সোলেমান আলী। 

পুরোনো সংবাদ

সমাজ-সংগঠন 4089598148296271472

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item