ডোমারে যৌন নির্যাতনের শিকার ২য় শ্রেনীর ছাত্র।ধামা চাপা দেয়ার চেষ্টা।

আনিছুর রহমান মানিক, ডোমার, (নীলফামারী) প্রতিনিধিঃ

নীলফামারীর ডোমারে যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে এক ২য় শ্রেনীর ছাত্র। একটি প্রভাবশালী মহল ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করছে। এনিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে, উপজেলার জোড়াবাড়ী ইউনিয়নের হলহলিয়া ডাঙ্গাপাড়া কানার হাট এলাকায়। সরেজমিনে যানাযায়, উক্ত এলাকার হাজী পাড়া গ্র্রামের মৃত নুর আমিনের লম্পট পুত্র আঞ্জুরুল ইসলাম(১৮) দির্ঘদিন ধরে হামিদুল ইসলাম টুপিয়ার ছেলে জাহেদুল ইসলামের মাইক্রোবাসের ড্রাইভারী সহ বাড়ীর কাজ কর্ম করে আসছে। ৬সেপ্টম্বর মঙ্গলবার দুপুরে প্রতিবেশী দিন মুজুরের ছেলে ২য় শ্রেনীর ছাত্র (৮) কে বাঁশের পাতা ছেড়ার কথা বলে আঞ্জুরুল বাঁশ বাগানে নিয়ে যায়।সেখানে জোর পূর্বক পাষবিক নির্যাতন চালায় ড্রাইভার। শিশুটি চিৎকার করতে থাকলে তার প্যান্ট দিয়ে মুখ চেপে ধরে এবং ভয়ভীতি দেখায় বলে নির্যাতনের শিকার শিশুটি জানায়। আবারো চিৎকারের চেষ্টা করলে ড্রাইভার আঞ্জুরুল পালিয়ে যায়। পরে শিশুটি বাড়ীতে এসে মলদারে ব্যাথা অনুভব করে কান্নাকাটি করতে থাকে। বিষয়টি জানাজানি হলে, ড্রাইভার পালিয়ে যায়। শিশুটিকে দ্রুত বোড়াগাড়ী হাসপাতালে ভর্তি কওে তার পরিবার। এবিষয়ে শিশুটির পরিবারের উপর প্রভাবশালীরা ভয়ভীতি  প্রদর্শন করছে বলে তার মা জানায়। শেষে বুধবার বিকালে জোড়াবাড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল হাচানের ছেলে মিজানুর রহমান হাসপাতালে গিয়ে সালিশ মিমাংসার কথা বলে হাসপাতাল থেকে শিশুটিকে বাড়ীতে ফেরত পাঠায়। শিশুটির বাবা অন্যত্র কাজের সুবাদে বাহিরে থাকায় শিশুটিকে নিয়ে তার মা চরম দূর্ভোগে দিনাতিপাত করছে এবং বিচারের আশায় মানুষের  দ্বারে দ্বারে ধর্না দিয়েও কোন ফল পাচ্ছেনা বলে অভিযোগ করেন। এলাকাবাসী জানান, ড্রাইভার আঞ্জুরুল এর আগেও এধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে এবং একাধীকবার স্থানীয় ভাবে বিচার শালিশ হয়, সে এলাকায় লম্পট নামে পরিচিত। শিশু নির্যাতনকারী আঞ্জুরুল সহ তার সহযোগীদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী জানান শিশুটির পরিবার।  

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 2050951922911313955

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item