শ্রমিকদের মিলেনা ন্যায্য পারিশ্রমিক

মো. জহুরুল ইসলাম খোকন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি

সারাদেশের ন্যায় সৈয়দপুরেও পালিত হয়েছে মে দিবস। ৮ ঘন্টা কাজের দাবিতে বিগত ১৩০ বছর এ দিবস পালিত হলেও শতভাগ দাবি পূরণ হয়নি বলে জানান শ্রমিকরা। পহেলা মে সৈয়দপুরের বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠন আনন্দ র‌্যালি শেষে ওই মন্তব্য করেন তারা।
জানা যায়, ১৮৮৬ সালে ৮ ঘন্টা কাজের দাবিতে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো শহরের লাখো শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেন। ওই বিক্ষোভে পুলিশের গুলিতে প্রাণ হারান ১০ শ্রমিক। সাথে সাথে শ্রমিক হত্যার খবর ছড়িয়ে পড়ে সারা পৃথিবী জুড়ে। ওই সময় গড়ে ওঠে বৃহৎ শ্রমিক ঐক্য। এরপর আন্দোলন ভয়াবহ আকার ধারণ করে। ওই আন্দোলনে তৎকালীন যুক্তরাষ্ট্রের সরকার শ্রমিকদের দাবি পূরণে বাধ্য হয়। এরপর ১৮৮৯ সালের ১৪ জুলাই প্যারিসের শ্রমিক সম্মেলনে শ্রমিকদের অর্জিত দাবির দিন স্বীকৃতি দিয়ে পালিত হতে শুরু হয় ১লা মে আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংহতি দিবস।
শ্রমিকরা বলছেন, যে দাবি আদায়ে শ্রমিকরা জীবন দিয়েছিল ১৮৮৬ সালে, সে দাবি ২০১৬ পর্যন্তও তা পূরণ হয়নি। এছাড়া শ্রমিকরা তাদের পারিশ্রমিকও পাচ্ছেন না কড়ায় গন্ডায়। ৮ ঘন্টার ডিউটির কথা বলে মালিক পক্ষরা শ্রমিকদের দ্বারা কাজ করিয়ে নিচ্ছেন ১২ থেকে ১৪ ঘন্টা। অথচ পারিশ্রমিকের বেলায় মিলছে মালিক পক্ষের নোংরা ব্যবহার।
শ্রমিকরা আরও বলছেন, ৮ ঘন্টার ডিউটির পাশাপাশি বেতন বৃদ্ধির দাবিতে সৈয়দপুরসহ সারাদেশে শ্রমিকদের আন্দোলনের পর বর্তমান সরকার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শ্রমিক কর্মচারীদের কমপক্ষে ৫৪০০ টাকা বেতন প্রদানের নির্দেশ দেন মালিক পক্ষকে। কিন্তু কে শুনে কার কথা। সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত কাজ করার পরও মালিক পক্ষ শ্রমিকদের পারিশ্রমিক দিচ্ছেন ৩ থেকে সর্বোচ্চ ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত। অনেকে আরও ২ ঘন্টা ওভারটাইম করার পরও মিলছে একই পারিশ্রমিক। এনিয়ে প্রতিবাদ করলেই মিলছে (গার্ডানিয়া পাসপোর্ট) গলা ধাক্কা।
শ্রমিকদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে সম্প্রতি রয়্যালেক্স মেটাল ইন্ডাস্ট্রিতে গিয়ে দেখা যায়, শ্রমিকদের অভিযোগের সত্যতা। সেখানে যুবতি শ্রমিকদের সকাল ৭টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত কাজ করিয়ে মাসিক পারিশ্রমিক দেয়া হচ্ছে ৩ থেকে সাড়ে ৪ হাজার টাকা পর্যন্ত। এছাড়াও অনেক শিশু শ্রমিক রয়েছে যারা হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম করেও মিলছে না তাদের ন্যায্য পারিশ্রমিক। অন্যদিকে ওই কারখানায় ভারত থেকে আসা শ্রমিকদের মাসিক পারিশ্রমিক হিসাবে ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা দেয়া হলেও একই দক্ষতা সম্পন্ন সৈয়দপুরের শিশু শ্রমিকদের মিলছে ৪ থেকে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত। এসব শ্রমিকরা শুধু বাঁচার তাগিদে চাকরী হারার ভয়ে প্রতিবাদ করতেও সাহস পাচ্ছেন না। ১লা মে আর্ন্তজাতিক শ্রমিক সংহতি দিবস পালন না করে শ্রমিকরা তাদের ন্যায্য পারিশ্রমিক পাচ্ছেন কিনা এনিয়ে দেশের প্রতিটি কারখানায় তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার দরকার বলে মনে করছেন শ্রমিকরা। শ্রমিকদের ভালোবেসে মূল্যায়ন করেছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। একই মূল্যায়ন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও। তিনি শ্রমিকদের ভালোবেসেই মজদুরি বৃদ্ধির নির্দেশ দিয়েছেন মালিকপক্ষদের। কিন্তু ওই দুই দেশ প্রধানদের ভালোবাসা ও নির্দেশনাকে মালিক পক্ষরা তোয়াক্কা করছেন না বলেই শ্রমিকরা তাদের ন্যায্য পারিশ্রমিক থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন বলে মন্তব্য করছেন তারা।

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 1177303848838590854

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item