প্রধান শিক্ষকবিহীন নীলফামারী জেলার ৩১৩ প্রাথমিক বিদ্যালয়

মো. জহুরুল ইসলাম খোকন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি

জেলার ছয় উপজেলার ৩১৩টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নেই প্রধান শিক্ষক। দীর্ঘদিন ধরে এসব পদ পূরণ না হওয়ায় কিছু বিদ্যালয়ে দেখা দিয়েছে অচলাবস্থা, কিছু বিদ্যালয়ে বিদ্যমান চরম অব্যবস্থাপনা। অনেক বিদ্যালয়েই ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষককে মানতে চান না সহকারী শিক্ষকরা। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্র জানায়, পুরনো সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং সদ্য সরকারী হওয়া বিদ্যালয়গুলো নিয়ে জেলায় মোট প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা ৯৪৭টি। এসব বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর ৩ লাখ ৯০ হাজার ৩৪৯ জন। ওইসব বিদ্যালয়ের মধ্যে প্রধান শিক্ষক পদে অনুমোদিত বিদ্যালয় রয়েছে ৮৮১টি। এসব অনুমোদিত বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পদের বিপরীতে দায়িত্বরত রয়েছেন ৫৬৮ জন। ফলে ৩১৩টি স্কুলের কাজ চলছে প্রধান শিক্ষক ছাড়াই। প্রধান শিক্ষকহীন বিদ্যালয়গুলোর মধ্যে কিশোরীগঞ্জ উপজেলায় রয়েছে ৩১টি, জলঢাকা উপজেলায় ৯২টি, ডিমলা উপজেলায় ৫৫টি, ডোমার উপজেলায় ৬০টি, নীলফামারী সদরে ৬২টি এবং সৈয়দপুর উপজেলায় রয়েছে ১৩টি বিদ্যালয়।
সূত্র জানিয়েছে, প্রধান শিক্ষকহীন এসব বিদ্যালয়ের এমন চিত্র অন্তত এক থেকে পাঁচ বছরের বেশি সময়ের। সর্বশেষ ২০১২ সালে নিয়োগ পরীার মাধ্যমে ২৭ জনকে প্রধান শিক্ষক হিসেবে পদায়ন করা হয়। এরপর থেকে নিয়োগ প্রক্রিয়াও থমকে আছে। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা দিলীপ কুমার বণিক প্রধান শিক্ষক না থাকায় স্কুলগুলোয় শিক্ষার্থীদের পড়ালেখায় প্রভাব পড়ছে মন্তব্য করে বলেন, আমরা শূন্য পদ পূরণে সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে।

পুরোনো সংবাদ

শিক্ষা-শিক্ষাঙ্গন 3827249577549011907

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item